• রেকর্ড ভেঙে তছনছ করে দিচ্ছেন প্রবাসী জুনায়না

    October 23rd, 2017 by Morsalin Ahmed

    ক্রীড়া প্রতিবেদক :
    সাইফ পাওয়ারটেক ৩২তম জাতীয় বয়সভিত্তিক সাঁতার প্রতিযোগিতায় অতীতের রেকর্ড ভেঙে তছনছ করে দিচ্ছেন লন্ডন প্রবাসী জুনায়না আহমেদ। আজ রোববার মিরপুর সৈয়দ নজরুল ইসলাম জাতীয় সুইমিং কমপ্লেক্সে পাঁচটি নয়া রেকর্ডের মধ্যে গোপালগঞ্জ সুইমং ক্লাবের হয়ে জুনায়না একাই গড়েছেন তিনটি রেকর্ড।

    শুধু কী তাই! বয়সভিত্তিক আসরের নতুন জাতীয় রেকর্ডই শুধু নয়, ১৪ বছরের এ কিশোরী তছনছ করে দিয়েছেন জাতীয় সিনিয়র রেকর্ডও। তার মানে বয়সভিত্তিক সাঁতারে পুলে নেমেই জুনায়না এখন ১০০, ৪০০ মিটার ফ্রিস্টাইল ও ২০০ মিটার ইনডিভিজুয়েল মিডলে দেশসেরা।

    সুনামগঞ্জের জুনায়না যখন ৪০০ মিটার ফ্রিস্টাইলে শেষ ৫০ মিটারের জন্য ঘুরছে, তখন দ্বিতীয় স্থানে থাকা ‘সেরা সাঁতারু’ ক্যাম্পের ফাতেমা আক্তারের কেবল ৩০০ মিটার শেষ হয়েছে। জুনায়না ফিনিশিং প্যাড ছুঁলো নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীকে পুরো এক লেন পেছনে রেখেই। বয়সভিত্তিক সাঁতারে যারা এ ইভেন্ট দেখেছেন তাদের মধ্যে বিস্ময়ের ঘোর এখনো কাটছে না।

    এক লেন ব্যবধান রেখে জেতা—৪০০ মিটার ফ্রিস্টাইলেও হয়েছে তা। ১৫-১৭ বছর গ্রুপে ২০১২ সালে গড়া নাজমা খাতুনের রেকর্ড তো ভাঙলই, ভেঙে গেল তার গত বছর সিনিয়র সাঁতারে গড়া রেকর্ডটাও। নাজমার টাইমিং ছিল ৫:০৭.১০। জুনায়না শেষ করেছে ৫:০০.৭৮-এ।

    শুধু তাই নয়, এর আগে ১০০ মিটার ফ্রিস্টাইলেও সে ২০১২ সালে গড়া নাজমার সিনিয়র রেকর্ড ভেঙেছেন। জুনায়না ০১:০৫.১৬ টাইমিং নিয়ে এ কৃতিত্ব দেখান। পূর্বের রেকর্ড ছিল ০১:০৭.৬০। ২০০ মিটার ইনডিভিজুয়াল মিডলেতে ভেঙেছে রুমানা আক্তারের সিনিয়র রেকর্ডও। এ রেকর্ড ভাঙতে সময় নেন জুনায়না ০২.৪৩.৮৯। পূর্বের রেকর্ড ছিল ০২.৫১.২০।

    এছাড়া এদিন আরো দুটি নয়া রেকর্ড হয়েছে। বুষ্টিয়া জেলা ক্রীড়া সংস্থার মামুর রশিদ ১৫-১৭ গ্রুপে ১০০ মিটার ফ্রি স্টাইলে ২০১২ সালে আসিফ রেজার রেকর্ড ভঙ্গ করেন। তিনি ০০.৫৭.১৭ নিয়ে নয়া রেকর্ড সৃষ্টি করেন। পূর্বের রেকর্ড ছিল ০০.৫৮.০৯। অপরদিকে ১৮-২০ গ্রুপে বিকেএসপির জাহিদুল ইসলাম ২০০ মিটার বাটার ফ্লাইয়ে ০২.১৭.২১ সময় নিয়ে আরিফুল হকের গড়া ২০১৫ সালের রেকর্ড ভেঙে নতুন রেকর্ড গড়েন। পূর্বের রেকর্ড ছিল ০২.২২.৪৯।

    উল্লেখ্য তিনদিনব্যাপী এ আসরে ১০০টি ইভেন্টের মধ্যে প্রথম দিনে ২৯টি ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে বিকেএসপি ১১টি স্বর্ণ, ৯টি রৌপ্য ও ৭টি ব্রোঞ্জসহ ২৭টি পদক জয় করে শীর্ষে উঠে এসেছে। তবে ৭টি স্বর্ণ, ৮টি রৌপ্য ও ৭টি ব্রোঞ্জসহ ২২টি পদক নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। তিনটি স্বর্ণ জিতে তৃতীয় স্থানে অবস্থান করছে গোপালঞ্জ সুইমিং ক্লাব। আগামীকাল ২৩ অক্টোবর প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় দিন।
    বিডিস্পোর্টস২৪.কম/এসটি

অতিথি কলাম

সাক্ষাৎকার

স্পোর্টস ফ্যাশন

প্রবাসী তারকা

জেলা ক্রীড়া সংস্থা

বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০